জন্মদিনের শুভেচ্ছা, বিরাট ক্যানভাসের কোহলি

বিরাট নামক একটি ফুল না ফুটলে হয়তো আধুনিক ক্রিকেট এতো সুগন্ধ ছড়াতো না। এই একবিংশ শতাব্দীর শ্রেষ্ঠ ক্রিকেটারদের মধ্যে বিরাট কোহলি অন্যতম। নানা চড়াই-উতরাই পেরিয়ে কোহলি নিজেকে নিয়ে গেছেন সর্বোচ্চ সম্মানের জায়গায়। আজকের এই প্রতিষ্ঠিত কোহলি একদিনে গড়ে ওঠেন নি।

১৯৮৮ সালের ৫ নভেম্বর দিল্লীতে জন্মগ্রহণ করেন এই কিংবদন্তী। ৩৫ কে বিদায় জানিয়ে ৩৬ এ পদার্পণ। ক্রিকেট নিয়ে তার আবেগ সেই ছোট্টবেলা থেকেই। তার ভাই জানিয়েছিলেন, “তার (বিরাট) দুটি মাত্র পোশাক ছিল। একটি স্কুলের ইউনিফর্ম আর অন্যটি ক্রিকেটের ইউনিফর্ম। ”

বিরাট কোহলি ক্রিকেটের প্রতি যে ভালোবাসা দেখিয়েছেন তারই ফলশ্রুতিতে ক্রিকেট বিধাতা তাকে দিয়েছেন উজাড় করে। ২০০৮ সালে অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপে বিরাটের নেতৃত্বে ভারত চ্যাম্পিয়ন হলে শুরু ক্রিকেটে তার নতুন পথচলা। বেশিদিন অপেক্ষা করতে হয়নি সেই বছর শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ওয়ানডে ম্যাচের মধ্য দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে আবির্ভাব হয়েছিল এই কিংবদন্তী ক্রিকেটারের।

২০১১ বিশ্বকাপ ছিল কোহলির জীবনের প্রথম বিশ্বকাপ, সেখানেও বাজিমাত করে বসেন কিং কোহলি। বাংলাদেশের বিপক্ষে সেঞ্চুরি করে ক্রিকেট বিশ্বকে জানান দেন, ‘আমি আসছি গোটা ক্রিকেট সাম্রাজ্যের একক আধিপত্য লাভ করতে। আমি আসছি এই ক্রিকেট রাজ্যের শাসন করতে। ‘

২০১০ থেকে ২০২০ আইসিসির দশক সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হন। এই সময়ের মধ্যে কোহলির অর্জন ছিল ২০১১ বিশ্বকাপ ও ২০১৩ চ্যাম্পিয়নস ট্রফি জয়। তাছাড়া দ্বিপাক্ষিক সিরিজগুলোতে বিরাট কোহলি ছিলেন অপ্রতিরোধ্য। ব্যাটসম্যান বিরাট কোহলির কাছে অসহায় আত্মসমর্পণ করতে হয় বিশ্বের সকল নামীদামী বোলারদের।যেদিন বিরাটের ব্যাট হাসে সেদিন হেসে ওঠে শতকোটি ভারতীয় সমর্থকেরা।

একটিভ খেলোয়াড়দের মধ্যে বিরাট কোহলি এখন সবার ধরা ছোয়াঁর বাইরে। তার সাথে পাল্লা দেওয়ার মতো ক্রিকেটার বর্তমান বিশ্বে আছে কিনা সন্দেহ। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে কোহলির সংগ্রহে ৭৭টি সেঞ্চুরি। তার চেয়ে বেশি শতক আছে কেবল মাত্র একজনের তিনি হচ্ছে বিরাটের স্বদেশী কিংবদন্তি শচীন টেন্ডুলকার।

প্রায় ২৫ হাজর রানের মালিক বিরাট কোহলি সবচেয়ে বেশি ভয়ঙ্কর একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে। এখনো পর্যন্ত বিরাট কোহলি ২৮৮ ওয়ানডে ম্যাচে ৫৮.০৫ গড়ে সংগ্রহ করেছেন ১৩৫২৫ রান। ২০১১ সালে টেস্ট অভিষেক হলে, বিরাট হয়ে ওঠেন ভারতীয় দলের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ সদস্য। ১১১ টেস্টে ৪৯.৩ গড়ে সংগ্রহ করেছেন ৮৬৭৬ রান। সর্টার ফরম্যাট অব ক্রিকেট টি-২০তে নজরকাড়া পারফর্মেন্স করে আসছেন বিরাট ১১৫ ম্যাচে ৫২.৭৪ গড়ে সংগ্রহ করেন ৪০০৮ রান। একইসময় ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগ আইপিএলেও সমান তালে রান করে যাচ্ছেন এই সুপারস্টার। আইপিএল ক্যারিয়ারে বিরাট কোহলি ৭২৬৩ রান নিয়ে আইপিএল ইতিহাসের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক।

এতো এতো রেকর্ডের পুরষ্কারও পাচ্ছেন বিরাট। ২০১৩ সালে *অর্জুন*, ২০১৭ সালে *পদ্মশ্রী*,২০১৮ সালে রাজীব গান্ধী খেলরত্ন ভারতের সর্বোচ্চ ক্রীড়া সম্মাননা ভূষিত হন। তাছাড়া আইসিসির দশক(২০১০-২০) সেরা খেলোয়াড়, বর্ষসেরা খেলোয়াড়সহ আরও অসংখ্য পুরষ্কারে পুরষ্কৃত হন।

ব্যক্তিগত জীবনে বিরাট কোহলির প্রেম নিয়ে আলোচনা-সমালোচনার সৃষ্টি হয়েছিল। ২০১৩ সাল থেকে বলিউড অভিনেত্রী আনুষ্কা শর্মার সঙ্গে প্রণয় সম্পর্কে জড়ান। ২০১৭ সালে ইতালিতে আনুষ্কা-বিরাট বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। তাদের ঘরে আলো হয়ে আসে একমাত্র কন্যা ভামিকা।

৩৬ তম জন্মদিনে বিরাট ভারতীয় দলের হয়ে আজ খেলতে নামবেন দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে। ২০২৩ বিশ্বকাপের গুরুত্বপূর্ণ এই ম্যাচে বিরাটের ব্যাটের দিকে চেয়ে রইবে ভারতীয় সমর্থকেরা। এখনো পর্যন্ত বিরাট ২০২৩ বিশ্বকাপে ৪৪২ রান নিয়ে তৃতীয় সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক এবং ভারতীয়দের মধ্যে সর্বোচ্চ।

এই বিশেষ দিনে বিরাট কোহলির মতো কিংবদন্তীর জন্য শুভকামনা। ক্যারিয়ার শেষে তিনি যেন ১০০ তম সেঞ্চুরির দেখা পান এই প্রত্যাশা। কোহলির মতো জীবন্ত কিংবদন্তীকে যারা উপভোগ করছে তারা সত্যিই ভাগ্যবান।

© জয়রাজ জয়, কন্ট্রিবিউটর, টাইগার্স কেভ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here