মাশরাফির চোখে বাংলাদেশের বিশ্বকাপ দল

বিশ্বকাপ দল নিয়ে এবার নিজের ভাবনা জানালেন বাংলাদেশের সাবেক অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। আজ নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে বিশ্বকাপে প্রতিনিধিত্ব করতে যাওয়া ১৫ সদস্যের দলকে নিয়ে সমর্থকদের উদ্দেশ্যে নিজের ভাবনা জানালেন নড়াইল এক্সপ্রেস।

ওপেনিংয়ে সুযোগ পাওয়া লিটন দাসের ফর্ম নিয়ে অনেক কথা হলেও মাশরাফি মনে করেন লিটন দাস রান পেলে দলকে অনেক এগিয়ে দিতে পারেন, পাশাপাশি তানজিদ তামিম এর শটস খেলার প্রবণতা তাকে বিশ্বকাপ দলে জায়গা পেতে সাহায্য করেছে বলে মনে করেন মাশরাফি। এই দুই ওপেনার সব ম্যাচে রান না পেলেও যদি ৪/৫ টি ম্যাচে রান পান তাহলেও দল জয়ের দিকে অনেক এগিয়ে যাবে বলেই মনে করেন তিনি। মেইক শিফট ওপেনার হিসেবে মিরাজকেই নিজের পছন্দের তালিকায় রেখেছেন তিনি এবং মিরাজকে স্কোয়াডের আনসাং হিরো হিসেবে সম্বোধন করেন ম্যাশ। নাম্বার থ্রি তে নামা শান্ত তার সেরা ফর্মে আছেন এবং তার এই ফর্ম দলকে সাহায্য করবে।

মিডল অর্ডারে সাকিব,হৃদয় এবং মুশফিকের ফর্ম বেশ আশা দেখাচ্ছে ম্যাশকে। ভারতের বিপক্ষে সাকিবের রান পাওয়া সেই আশা আরো বাড়িয়ে দিয়েছে। আর তৌহিদ হৃদয় বাংলাদেশের হয়ে টুর্ণামেন্টের অন্যতম সেরা ব্যাটার হবেন বলেই ধারনা ম্যাশের। ছয়ে নামা মুশফিকও আছেন বেশ ফর্মে, তাই মিডল অর্ডার রান পেলে দল বড় স্কোরের দিকেই এগিয়ে যাবে বলে মনে করেন মাশরাফি।

লেইট মিডল অর্ডারে সুযোগ পাওয়া রিয়াদ,শেখ মাহেদী এবং মেহেদী মিরাজ ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি ভূমিকা রাখবেন স্পিন বোলিংয়েও। তবে যে ম্যাচে মাহেদীর দশ ওভার বোলিং ইম্পর্ট্যানট মনে করবে টিম ম্যানেজমেন্ট সেই ম্যাচে রিয়াদকে বসানো যেতে পারে বলে মনে করেন তিনি।

স্পিন বোলিংয়ের দায়িত্বে থাকা সাকিব আল হাসানের ফর্ম নিয়ে আলোচনার কোনো প্রয়োজন আছে বলে মনে করেন না তিনি, বিশ্বসেরা অলরাউন্ডারের বোলিংয়ের প্রতি বেশ ভরসা আছে সাবেক এই অধিনায়কের। তবে বিশ্বকাপের ফ্লাট উইকেটে চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হতে পারেন আরেক স্পিনার নাসুম আহমেদ। তবে সাকিবের অধিনায়কত্বে নাসুম এই চ্যালেঞ্জটা ভালো ভাবেই উতরে যেতে পারবেন বলে মনে করেন তিনি,পাশাপাশি মিরাজ,মাহেদীর স্পিনটাও দারুন কাজে দিবে বলে মনে করেন সাবেক এই পেসার।

তাসকিন,হাসান মাহমুদ,ফিজদের পেস বোলিং ইউনিটকে দলের সবচেয়ে শক্তিশালী জায়গা হিসেবেই দেখেন এই তারকা।শুরুর ওভার গুলোতে তাসকিন,শরিফুল এবং মাঝের ওভারে ফিজ আর ডেথ বোলিংয়ে হাসান মাহমুদের বর্তমান ফর্ম এই বিশ্বকাপকে ইতিহাসের সেরা বিশ্বকাপ বানাতে সাহায্য করবে। শরিফুলের কম সময়ে ইনসুইং আয়ত্ত্বে আনাটা বেশ প্রশংসা কুড়িয়েছে মাশরাফির মুখে। তানজিম সাকিবের সাহস এবং বোলিং এক্যুরসিরও প্রশংসা করেন ম্যাশ এবং তার ব্যাটিংটাও দলকে বেশ সহায়তা করবে বলেই মনে করেন মাশরাফি বিন মর্তুজা।

পেসারদের এই উন্নতির পেছনে পেস বোলিং কোচ এলান ডোনাল্ডের কৃতিত্ব দিতে ভুলেননি মাশরাফি।

দলের প্রতি মাশরাফির আশা এবং ভরসা সাকিব বাহিনীকে বেশ সাহস যুগাবে টুর্নামেন্টের নামার আগে।আগামী ৭ অক্টোবর আফগানিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে টুর্ণামেন্ট শুরু করবে বাংলাদেশ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here