পুরুষদের কান্নায় লজ্জা নেই : শচীন

নিজের খেলোয়াড়ি গুণে বিশ্বব্যাপি সমাদৃত ভারতীয় কিংবদন্তী ব্যাটসম্যান শচীন রমেশ টেন্ডুলকার। সম্প্রতি, ‘পুরুষ দিবস’ উপলক্ষে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি খোলা চিঠি লিখেছেন শচীন। চিঠিতে তিনি পুরুষদের কান্না লুকিয়ে রাখার ব্যাপারে বেশ আলোকপাত করেছেন। জানিয়েছেন পুরুষদের কান্নায় লজ্জার কিছু নেই। পাঠকদের জন্য তা তোলে ধরা হলো…

‘অশ্রু দেখানোয় লজ্জার কিছু নেই। তাই যা আপনাকে শক্তিশালী বানায় সেটাকে লুকিয়ে রাখা কেন? কেন অশ্রু লুকিয়ে রাখতে হবে? আমাদের এটা বিশ্বাস করানো হয় যে-পুরুষদের কাঁদতে নেই। কান্না পুরুষদের দুর্বল বানায়। আমিও এটা বিশ্বাস করতাম। আমি এই চিঠি লিখছি কারণ আমি এখন বুঝতে পারি যে আমি ভুল ছিলাম। আমার সংগ্রাম ও কষ্ট আমাকে আজকের অবস্থানে এনেছে।

কষ্ট ও দুর্বলতার বহিঃপ্রকাশ অনেক সাহসিকতার ব্যাপার। কিন্তু বিশ্বাস করুন, এটা আপনাকে আরও শক্ত ও ভালো করে গড়ে তুলবে। তাই পুরুষ কী করতে পারবে আর পারবে না এসব ধরাবাঁধা বিষয় পেছনে ফেলার জন্য আহবান জানাচ্ছি। আপনি যেই হোন, যেখানেই থাকুন, কামনা করি আপনার যেন সেই সাহস হয়। নিঃসন্দেহে, অনেক সময় আপনি হেরে যাবেন এবং কাঁদতে ইচ্ছা করবে। এটা হতে দিন। কিন্তু এসময় আপনি অশ্রু সংবরণ করবেন এবং শক্ত হওয়ার ভান করবেন। কারণ পুরুষরা এটাই করে।

‘আমি এটা (বিদায়) নিয়ে অনেক আগে থেকেই ভাবছিলাম কিন্তু শেষ সপ্তাহে প্যাভিলিয়নের পথে ফেরার সময় কিছুই কাজে লাগেনি। প্রতিটি পদক্ষেপে আমি ডুবে যাচ্ছিলাম বলে অনুভব হচ্ছিল। সব শেষ হয়ে যাচ্ছে ভেবে আমার গলা ধরে আসছিল। ওই সময় আমার মাথায় অনেক কিছু ঘোরপাক খাচ্ছিল। আমি নিজেকে দমিয়ে রাখতে পারছিলাম না। এবং আমি তা করিওনি। আমি পুরো দুনিয়ার সামনে এটাকে (আবেগ) উন্মুক্ত করে দিলাম এবং অবাক করা বিষয় হলো, আমার নিজেকে অনেক হালকা লাগছিল। আমি শান্তি অনুভব করছিলাম। আমি যা অর্জন করেছি তা নিয়ে বাধিত ছিলাম। আমি নিজেকে একজন যথার্থ পুরুষ হিসেবে অনুভব করছিলাম।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here